ছোট্ট মেয়ের কন্ঠে বিনোদিনী রাই, গান শুনে মুগ্ধ নেটিজেনরা

  • 2.9K
    Shares

বর্তমান ভার্চুয়াল দুনিয়ায় আমরা কত কিছুর সঙ্গেই না পরিচিত হয়েছি। যা আমাদের সত্যি এককথায় ধারনার বাইরে ছিল। তবে আমার পরিচিত হয়েছি ঠিক কথা পরিচিত করানোর জন্যই কিন্তু সেই সমস্ত শিল্পীরা নিজেদের প্রতিভা দেখানোর একটা ভালো জায়গা খুঁজে পেয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে সকলেই এখন তাই আমাদের সকলের সামনে আসার চেষ্টা করছেন। অনেক প্রতিভাই স্থান পায়না িভি রিয়েলিটি শোয়ে। কিন্তু তারাও যে সেলিব্রিটি তার প্রমান দিয়েছে। হয়তো পাড়ার মঞ্চেই গান বা না কিংবা আবৃত্তি বা অন্যান্য প্রতিভা দেখানোর সুযোগ পান কিন্তু এখন সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে তার পরিধিটা অনেক বেশি প্রসারিত হয়েছে। তবে সকলেই আর জনপ্রিয় হন না। বাছাই করা বেশ কয়েকটি সুন্দর কন্ঠ বা নৃত্যশৈলী আমাদের মনে গেঁথে যায়।

ঠিক তেমনি এক গানের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় করছে। করোনা পরিস্থিতিতে সকলের মন খারাপ থাকলেও এই গান শুনে নেটিজেনরাও মুগ্ধ হয়েছেন। বিনোদিনী রাই গানেএক অসাধারণ প্রতিভার সন্ধান পেলাম আমরা। দৃশ্য দেখে মনে হচ্ছে পরিবারের নেই আভিজাত্য কিংবা আর্থিক বাহুলতা, তবুও এক চিলতে ঘরে এক অনন্য প্রতিভা। বাবার তবলচির সাহায়্যে মেয়ে হারমোনিয়াম বাজিয়ে গাইছেন সর্বত মঙ্গল রাধে বিনোদিনী রাই, বৃন্দাবনে বংশী ধারী নাগর কানাই। গানটি এমনিতেই ভীষণই জনপ্রিয়।

কিন্তু মাত্র বছর পাঁচেকের মেয়ের কন্ঠে শুনে তা যেন অম-তের সমান মনে হচ্ছে। হারমোনিয়ামের কোনো তালটিই মিস হয়নি। একেবারে গানের সঙ্গে মিলিয়ে হারমোনিয়ামের ছন্দ একাকার হয়ে গেছে। যেভাবে গানটি সে অনায়াসে রপ্ত করে ফেলেছে তাতে নেটিজেনদের মনেও স্থান পেয়েছে। সকলেই কমেন্ট বক্সে মেয়েজটির গানের প্রশংসা করেছেন। তাঁকে আশীর্বাদও করেছেন।

প্রসঙ্গত, সর্বত মঙ্গলরাধে গানের সঙ্গে এক স্কুল পড়ুয়া অনবদ্য নাচ করেছিল। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক পড়ুয়ার সেই নাচ বেশ হিট হয়েছিল। স্কুল ইউনিফর্মে গানের তালে তাল মিলিয়ে সে নেচেছিল। জানা গিয়েছিল কোনোদিনই নাচের শিক্ষা পাওয়ার সুযোগ হয়নি। নেহাতই নিজের মনে নাচ করে যয়ায়। আর সেভাবেই হিট।

error: Content is protected !!