মন্ত্রিত্ব পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে প্রথম ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা দিলেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা

তৃণমূল মন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা সদ্যই মন্ত্রিপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন একই সঙ্গে তিনি ইস্তফা দিয়েছেন জেলা সভাপতির পদ থেকে আর জানিয়ে সরগরম হয়েছে রাজ্য রাজনীতি।এমনিতেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকটা মাস এর অপেক্ষায় রণতরী সাজাতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপি।যেহেতু লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির একটা বিরাট অংশ জায়গা করে নিয়েছে তাই তৃণমূলের জায়গা কোনোভাবেই ছেড়ে দিতে নারাজ রাজ্য সরকার এবং তাই তো ইতিমধ্যেই গুটি সাজাতে ব্যস্ত রাজ্যের শাসক শিবির।কিন্তু এরই মধ্যে রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী পদত্যাগ করেছেন এবং তিনি যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে এরপর এক সপ্তাহ কাটতে না কাটতেই আবারো প্রাক্তন ক্রিকেটার লক্ষ্মীরতন শুক্লা তৃণমূলের মন্ত্রিত্ব পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন জানিয়ে রাজ্য রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

যদিও কোন্দলে যাচ্ছেন তা এখনো ঠিক হয়নি কারণ এখনও অবধি তিনি তৃণমূলের রয়েছেন কিন্তু মন্ত্রিত্ব পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় আজ প্রথম পোস্ট করলেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা।ফেসবুকে একটি পোষ্ট দিলেন সেই পোষ্টটি যত ইঙ্গিত তার ওপর উগরে দিলেন ক্ষোভ এই নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে কম কিছু হচ্ছে না।যদিও এমন মন্তব্য নেটিজেনের।আসলে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক জনৈক ভক্তের আঁকা ছবি শেয়ার করেছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা সেই ছবিতে সৌরভ গাঙ্গুলীর হাত রয়েছে লক্ষ্মীরতন শুক্লার কাঁধে আর সেই ছবির ক্যাপশনে লক্ষী লিখেছেন,একজন সত্তিকারের নেতা বা অধিনায়ক শুধু নিজে খেলেন না তার টিমের সতীর্থদের খেলার সুযোগ করে দেয় খেলতে এগিয়ে দেন।

এই ক্যাপশনে লুকিয়ে রয়েছে ইঙ্গিত অন্য বার্তা এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।কিন্তু অনেকেই বলছেন নিছকই অরাজনৈতিক পোস্ট,কেউ আবার বলছেন দলীয় নেতৃত্ব কে বার্তা দিয়েছেন এমন প্রশ্ন রীতিমতো সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করছে।হঠাৎ করেই একযোগে মন্ত্রিত্ব এবং জেলা সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা কিন্তু কারণ কি এমন প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছিল তবে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে যেভাবে তিনি চেয়েছিলেন সেভাবে কাজ করার সুযোগ পারছিলেন না তিনি তাই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা এমনকি ইস্তফার পর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তিনি।

শুধু তাই নয় লক্ষ্মীর ইস্তফা নিয়ে গোষ্ঠী কোন্দল সম্পর্কে রাখঢাক করেননি বা কোনো লুকোছাপা করেননি বৈশালী ডালমিয়া।ইস্তফার পর লক্ষ্মীরতন শুক্লা এটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন দলের একাংশ নাকি মিটিং মিছিলে সারা দিত না এমনকি আলাদা মিটিং-মিছিল করত এর পাশাপাশি তিনি আরো উপরে দিয়ে বলেন তৃণমূল দলের একাংশ নাকি দলটিকে উইপোকার মত কুরে কুরে খাচ্ছে আর তাইতো পুরনো কর্মীদের কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না এবং এরপর এই সিদ্ধান্ত নেন ইস্তফা দেওয়ার।

লক্ষ্মীরতন শুক্লার ইস্তফা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লক্ষ্মীরতন শুক্লার প্রশংসা করে বলেছেন যে কেউ পদত্যাগ করতেই পারে, লক্ষ্মী মন্ত্রিত্ব পদ ছেড়েছে কিন্তু মন্ত্রিসভা ত্যাগ করেনি।এবং লক্ষী খেলায় সময় দিতে চায় বলেও উল্লেখ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

One thought on “মন্ত্রিত্ব পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে প্রথম ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা দিলেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা

Leave a Reply