নিজে অসুস্থ, হাতে স্যালাইন নিয়েও রোগীদের চিকিৎসায় ব্যস্ত তরুণ চিকিৎসক

  • 308
    Shares

তাঁরা আমাদের ঢাল তারা আমাদের সমাজের যোদ্ধা করোনা পরিস্থিতিতে এই শব্দটি আমাদের সঙ্গে বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে৷ গণনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য যে ভাবে চিকিত্সকরা নিজেদের প্রাণপাত করতে প্রস্তুত এবং সর্বদা চিকিত্সা করতে নিজেদের সময় জ্ঞানটুকু রাখছেন না তা সম্পর্কে আমরা বেশ অবগত রয়েছি এবং ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন চিকিত্সক করোনা ভাইরাসের চিকিত্সা করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন যদিও তাতেও কোনও সমস্যা নেই বরং আরও বেশি করে চিকিত্সক এই করোনা মোকাবিলার জন্য রোগীদের চিকিত্সা করছেন৷ এরই মধ্যে ঘটে গেল আরও এক নজির বিহীন ঘটনা৷

নিজে অসুস্থ হওয়ার সত্ত্বেও বাঁ হাতে স্যালাইন নিয়ে রোগীদের চিকিত্সায় ব্যস্ত তরুণ চিকিত্সক সুমন সন্নিগ্রাহী৷ তিনিও আর পাঁচ জন চিকিত্সকের মতো একজন ভালো চিকিত্সক যার মূল মন্ত্র রোগীর সেবা করা তাই নিজের শরীরের পরোয়া না করে বাঁকুড়ার   খাতড়া ব্লকের সিমলা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিত্সা করে যাচ্ছেন এই সুমনবাবু৷ সূত্রের খবর শনিবার প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিত্সা করতে এসে হঠাত্ অসুস্থ হয়ে পড়েন সুমনবাবু ঠিক তখনই তাঁকে স্যালাইন দেওয়া হয়৷ তখন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের আউটডোরে কয়েক শ লোকের ভিড়৷

তাই তখন তিনি আর বিশ্রামের জন্য সময়টুকু নেননি বরং নিজের শারীরিক অসুস্থতা বজায় রেখে বাঁ হাতে স্যালাইন ধরে ডান হাতে প্রেসক্রিপশন লেখেন এবং রোগীও দেখেন৷ ডাক্তারবাবুর এহেন ভূমিকায় চিকিত্সক স্বাস্থ্যকর্মীরা এবং রোগীরা সকলেই খুশি৷ একজন অসুস্থ মানুষ যার বিশ্রাম নেওয়া সব থেকে বেশি প্রয়োজন তিনিই কি না অসুস্থ হওয়ার সত্ত্বেও রোগীদের চিকিত্সার কাজে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন যা এক কথায় নজিরবিহীন৷

আর এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে হাসপাতালে চিকিত্সা করাতে আসা এক মহিলা জানালেন, “ডাক্তারবাবু এক হাতে স্যালাইন নিয়েও আমাদের ডেকে রোগের কথা শুনে চিকিৎসা করেছেন। ডাক্তারবাবুর এমন কাজে আমরা অভিভূত । ডাক্তারবাবু দেবতাতুল্য মানুষ” । ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে শুরু করে বিভিন্ন দফতরে এবং বিভিন্ন মহলে সুমনবাবুর প্রশংসা চলছে।

তবে এই ঘটনা নিয়ে সুমনবাবু জানিয়েছেন দুই রাত পর পর ডিউটি করার পর শনিবার সকাল থেকে হঠাত্ তিনি ডিহাইড্রেশনের সমস্যায় ভোগেন কিন্তু তখনও লাইনে দাঁড়িয়েছিল কয়েক শো রোগী তাই নিজেকে আর বিশ্রাম না দিয়ে সরাসরি রোগীদের চিকিত্সা করার কাজে নেমে পড়েন তিনি।

error: Content is protected !!