বাইরে থেকে ফিরেই পরিষ্কার করুন জুতো ও জামাকাপড়, জেনে নিন কি কি করা উচিত

  • 72
    Shares

এমনিতেই দেশজুড়ে দ্বিতীয় দফার লক ডাউন চলছে। তাতে এককথায় মাথায় হাত আমজনতার। কারণ, লকডাউনে বন্ধ সবকিছু। দিন আনি দিন খাই মানুষ দুবেলা খেতে পাচ্ছেন না ঠিক করে। তবে মানুষের খাবার দাবারের থেকেও সবথেকে বড় বিষয় করোনার জাল যাতে বিস্তার না করতে পারে। অর্থাত। করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে সমাজকে বাঁচানো। তাই তো প্রতিদিন বার বার সাধারণ মানুষকে ঘরবন্দি থাকার পাশাপাশি সচেতন থাকতে বলা হচ্ছে।

মাস্ক ব্যবহার তো করতেই হবে। তারসঙ্গে স্যানিটাইজার। নিয়ম করে হাত ধুতে হবে সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে। প্রযোজনে বাইরে বেরলেই মাস্ক মাস্ট। তবে সচেতনতার সত্ত্বেও যাদের প্রতিদিন বেরতেই হচ্ছে তাদের কিন্তু আবার উপরি সচেতনতা। বাড়ি ফিরেই বেশ কয়েকটি সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এমনিতেই করোনা ভাইরাসের জীবানু জামাকাপড়ে বেঁচে থাকে বাহাত্তক ঘন্টা। তাই বাইরে থেকে এলেই এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন-

১. বাড়ির মেন দরজার সামনে একটি করে বালতি রাখুন, যাতে স্যানিটাইজার মেশানো থাকে। বাড়ি ফিরেই জামা বা জুতো তাতে ডুবিয়ে দিন।

২. জামা কাপড় পড়ে বাড়ির ভিতরে নয় বাইরে রেখে দিন।

৩. বাইরে থেকে এসে অবশ্যই হাত পা তো ধোবেন তারসঙ্গে পারলে কিন্তু অবশ্যই স্নান সেরে ফেলুন। এতে জীবানু একেবারে ধুয়ে যাবে।

৪. বাইরে বেরনোর আগে একটি মাস্ক একটি রুমার কিংবা দুটি মাস্ক বা একটি রুমাল ব্যবহার করুন। কারণ একটি মাস্ক জীবানু প্রতিরোধের জন্য যথেষ্ট নয়।

৫. বাজারে যতটা সম্ভব নোট দেওয়া নেওয়া এড়িয়ে চলুন।

৬. বাড়ি ফিরে সকলের কাছে যাওয়ার আগে হাত মুখ অবশ্যই ভালো করে ধোবেন। এবং ধোওয়া ছাড়া কোনোরকম জিনিসপত্র না ছোঁয়াই ভালো।

সাবধান থাকুন, সতর্ক থাকুন, সুস্থ থাকুন। করোনার অতিমারির প্রভাব যখন জাল বিস্তার করেছে ঠিক তখন এই কামনাই করি আমরা। কারণ, যেভাবে দেশ, বিশ্বে করোনা মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে তাতে কিন্তু আমাদের সাবধানতাই সুস্থতার একমাত্র পথ। তাই তো ঘরবন্দি থাকুন লকডাউনের মধ্যে। মেনে চলুন প্রশাসনের নিয়ম। তা নাহলে সুস্থতা সম্ভব নয়।