‘এতো টাকা মাইনে’! মাইনের টাকা দিয়ে কি কি করবেন ভাবতেই পারছেন না ‘বাংলার দরিদ্রতম বিধায়ক’ চন্দনা বাউরি

বিজেপির বাঁকুড়ার শালতোড়ার চন্দনা বাউরি বিজেপির প্রার্থী হয়ে একুশের নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন। নির্বাচনে জয়লাভ করে বিধায়ক হ‌ওয়ার পরে তিনি শপথ নেওয়ার জন্য প্রথমবার বিধানসভায় গিয়েছিলেন কিন্তু দীর্ঘ করোনা আবহে তার আর যাওয়া হয়নি, তাই একজন বিধায়কের কত মাইনে তা তিনি জানেন না।

সম্প্রতি একটি সংবাদমাধ্যমের সাথে তার কথোপকথন চলছিল তখন তার এই মাইনের প্রশ্নটি উঠে আসে। বিধায়ক চন্দনা বাউরি জানান যে, বিধায়ক হিসেবে তিনি কত টাকা মাইনে পাবেন তা তিনি জানেন না। তাই সাংবাদিকের কাছে ঘুরিয়ে তিনি প্রশ্ন করেন, “কত টাকা মাইনে পাবো?”

সাংবাদিক তখন উত্তরে জানান যে, একজন বিধায়ক মাসে প্রায় ৮২ হাজার টাকা বেতন পান। যদি শপথ নেওয়ার দিন থেকে শুরু করে জুন মাসের মধ্যে তার ব্যাঙ্ক একাউন্ট খোলা হয়,তাহলে ১ লাখের‌ও বেশি মাইনে পেয়ে যাবেন তিনি।

এত টাকা মাইনে তিনি কখনো আশায় করতে পারেননি। স্বাভাবিকই মোটা অংকের মাইনের কথা শুনে তিনি হাঁ হয়ে যান। নিজের জন্য একটি গাড়ি কেনার ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেন, “কি করবো তা এখন ভাবতে পারছি না তবে মানুষের যাতে ভালো হয় এমন কিছু করবো। অত টাকা তো আর আমাদের লাগবে না, তাই মানুষের কাজে লাগাবো। আমার গাড়ির দরকার নেই। অনেক দাম। স্বামীর মোটরসাইকেল আছে তো ওতেই হয়ে যাবে।”

বিজেপির প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পর প্রথম থেকেই চন্দনার নাম শিরোনামে উঠে এসেছিলো। তার বাড়িতে একটি টিভি ও নেই। তাই নিজের জেতার খবরটিও পাশের বাড়ির টিভি থেকে পেয়েছিলেন তিনি। মাইনের অঙ্ক শোনার পরও টিভি কেনার প্রয়োজনীয়তা বোধ করেননি, তার কথা অনুযায়ী, “ভোটের আগে একটা মোবাইল কিনেছি। আর ওটাতেই ভালো টিভি দেখা যায়।”

One thought on “‘এতো টাকা মাইনে’! মাইনের টাকা দিয়ে কি কি করবেন ভাবতেই পারছেন না ‘বাংলার দরিদ্রতম বিধায়ক’ চন্দনা বাউরি

error: Content is protected !!