ক্যামেরা লাগানো হেলমেট ব্যবহার করলেই বাতিল হবে গাড়ির Driving licence, বড়ও ঘোষণা RTO দফতরের

বর্তমানে একটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ হল ইউটিউব(Youtube) যেখানে মানুষ নিজের সুখ স্বাচ্ছন্দ পূরণ করতে পারে তার সঙ্গে একটা আইয়ের জায়গা খুঁজে পেয়েছে আর তাই মানুষ ইউটিউব থেকে মোটা টাকা আয় করছেন। বিভিন্নভাবে vlogging করা গেলেও মোটো ভ্লগিং একটা বড় জায়গা রয়েছে ইউটিউবে আর তাই অনেকে বাইক রাইড করে বিভিন্ন জায়গায় পৌঁছে মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে আর তার জন্য প্রয়োজন হয়ে পড়েছে হেলমেটের সঙ্গে ক্যামেরা।

রাস্তা দিয়ে যাবার সময় রাস্তার দু’ধারে দৃশ্য বা সামনের দৃশ্য দেখানোর জন্য একমাত্র উপায় হেলমেটে ক্যামেরা তাছাড়া কার্যত অসম্ভব মোটো ভ্লগ। এখন মানুষ এতে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে আর তাই ইউটিউব এর চ্যানেল খুললেই বিভিন্ন দূর-দূরান্তে ভ্রমণ থেকে কাছের ভ্রমণের রাস্তার ডিরেকশন যদি পেতে চাও এই ভিডিওগুলো বিশেষভাবে সাহায্য করে.এর পাশাপাশি হেলমেটের ক্যামেরা লাগিয়ে যে কোনো দুর্ঘটনার দৃশ্য মুহূর্তের মধ্যে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে থাকেন কিন্তু আর বেশি দিন নয় এবার এই মোটও ভ্লগ এর রাশ টানতে নতুন ঘোষণা করেছে আরটিও(RTO)।

Helmet with camera banned by RTO
Helmet with camera banned by RTO

সম্প্রতি RTO তরফে ঘোষণা করা হয়েছে। সাম্প্রতিক কেরলের আরটিও ঘোষণা করেছে যে এবার থেকে যদি হেলমেটে ক্যামেরা থাকে তাহলে সেই ব্যক্তির ড্রাইভিং লাইসেন্স সম্পূর্ণভাবে বাতিল করে দেওয়া হবে। তবে এখানেই শেষ নয় কোন কোন ব্যক্তি হেলমেটের ক্যামেরা লাগিয়ে যেমন দুর্ঘটনার দৃশ্য তুলে পপুলার হতে চায় তার পাশাপাশি অনেক সময় ফেক নিউজ ছড়িয়ে দেয় তাই ৫৩ ধারা অনুযায়ী ‘গাড়িতে যদি কেউ মডিফিকেশন করেন সে ক্ষেত্রেও সাময়িকভাবে তার গাড়ির রেজিস্ট্রেশন বাতিল হতে পারে।

আসলে অনেক দেশেই এই সাইকেলে ক্যামেরা লাগিয়ে বাবাইকে ক্যামেরা লাগিয়ে অনেকে বীমা পাবার জন্য বিভিন্ন কাজ করে থাকেন কিন্তু অস্ট্রিয়া জার্মানি সুইজারল্যান্ডে একেবারে নিষিদ্ধ।

One thought on “ক্যামেরা লাগানো হেলমেট ব্যবহার করলেই বাতিল হবে গাড়ির Driving licence, বড়ও ঘোষণা RTO দফতরের

Leave a Reply