ইনি একজন IPS অফিসার, যার ট্রানস্ফার আটকাতে সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমেছিলেন! কারণ জানলে অবাক হয়ে যাবেন

বেশিরভাগ সময় পুলিশ আধিকারিকদের নিষ্ঠুরতার,ঘুষ নেওয়ার গল্প শুনতেই আমরা অভ্যস্ত কিন্তু এর বাইরেও তো সৎ পুলিশ অফিসারের গল্প আছে যা আমরা জানতে পারিনা‌। আইপিএস অফিসার কে কে আন্নামালাই এর গল্প শুনলে পুলিশ অফিসারদের সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা দূর হবে। ২০১১ এর ব্যাচের কর্মকর্তা আইপিএস অফিসার কে কে আন্নামালাই তার কাজের জন্য তার কর্মীদের মধ্যে থেকে শুরু করে জনসাধারণের মধ্যে ও ভীষণরকম জনপ্রিয়।

তামিলনাড়ুর গরুর জেলার বাসিন্দা আন্নামালাই ১৯৮৪ র ৪ঠা জুন জন্মগ্রহণ করেন। তাদের বাড়ি আর্থিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল না তবুও তার বাবা চেয়েছিলেন আন্নামালাই যেন পড়াশোনা নিয়েই থাকেন এবং এজন্য তিনি আন্নার পড়াশোনার বিষয়ে কোনো রকম কমতি করেননি। গুরুর বিদ্যালয়ে পড়াশোনা শেষ করে আন্নামালাই কোয়েম্বাটুর পি এস জি কলেজ অফ টেকনোলজি থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রী অর্জন করার পর লখনৌ এর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্টে ভর্তি হয়ে সেখান থেকে বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেছিলেন। এতকিছুর মধ্যেও তিনি তার লক্ষ্য বিচ্যুত হননি।

ইউপিএসসি পরীক্ষায় ছিল তার টার্গেট‌। আর ২০১১ এর ইউ পি এস সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে কর্ণাটকের ক্যাডরের অফিসার হন তিনি। কাজে জয়েন করার পর থেকে অন্য সকলের থেকে কাজে কর্মে নিজেকে আলাদা প্রমান করেছিলেন তিনি, তার কাজের দ্বারা তিনি সিনিয়রদের প্রশংসাও কুড়িয়েছিলেন।

২০১৫ র জানুয়ারিতে একজন পুলিশ সুপার হিসেবে তার পদোন্নতি হয়।তার সাহসিকতা ও সততার জন্য পুরস্কৃত হয়েছিলেন তিনি, উপজেলার পদ বহাল করা হয়েছিল তাকে। কর্নাটকের চিকমগলুরুতে ২০১৮ পর্যন্ত পোস্টিং থাকাকালীন তার জনহিতকর কাজের জন্য তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন। সেখানকার লোকেরা তাকে এতটাই ভালোবাসতো যে তার স্থানান্তরের নির্দেশ পেলে সকলে কাঁদতে শুরু করে এবং তাকে রাস্তায় থামানোর চেষ্টা করে।

২০১৮ তে আর‌ও একবার তার পদন্নতি হয়েছিল এইবার বেঙ্গালুরুর দক্ষিণের পুলিশ কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত হন তিনি।এরপর ২০১৮ র ২৮ শে মে তিনি পদত্যাগ করেন তার পদত্যাগের খবর শুনে সকলেই চমকিয়ে গিয়েছিলেন,কেউ বুঝতে পারছিল না এর পিছনে কী কারণ। অনেকে ভাবছিল হয়তো তার ওপর অন্য কোনো রকম চাপ আছে অথবা তিনি হয়তো রাজনীতিতে সক্রিয় থাকতে চান।

কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমার স্বামী ও তার সকল আধিকারিকরা‌ও তাকে সিদ্ধান্তটি বিবেচনা করবার কথা বলেছিলো। তবে তিনি চাকরিতে ইস্তফা দেওয়ার কারণ হিসেবে যে কারণগুলির কথা উল্লেখ করেছিলেন তা শুনলে মানুষের বিষ্ময়ের শেষ থাকে না।

তিনি জানিয়েছিলেন যে একজন পুলিশ অফিসারের চাকরি অনেক বেশি চ্যালেঞ্জে পরিপূর্ণ এবং তিনি প্রতিটি চ্যালেঞ্জই পুরোপুরি ভাবে উপভোগ করেছেন তবে তিনি জীবনের ছোটখাট অনেক জিনিস মিস করে গেছেন এখন সেগুলো উপভোগ করতে চান। তিনি একজন ভাল বাবা হতে চান এবং ছেলের সঙ্গে সময় কাটাতে চান তিনি বাড়ি ফিরে কৃষি কাজ করতে চান ও পরিবারের সাথে সময় কাটাতে চান।২০১৯ এ চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পর থেকে আন্নামালাই এখন বাড়ির সাথে সময় কাটাচ্ছেন ও এর পাশাপাশি তিনি সমাজ সেবার জন্য নিজেকে নিয়োজিত করেছেন। তিনি ওয়ে লিডার্স ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন গঠন করেছেন যেখানে তিনি চাকরি থেকে শুরু করে চাকরির সন্ধানেরত সকল তরুণদের শিক্ষাদান করেন এছাড়াও সামাজিক উন্নয়নের জন্য জৈব চাষে তিনি মানুষকে শিক্ষিত করছেন।

One thought on “ইনি একজন IPS অফিসার, যার ট্রানস্ফার আটকাতে সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমেছিলেন! কারণ জানলে অবাক হয়ে যাবেন

error: Content is protected !!