“শিবলিঙ্গ নিয়ে যারা ঠাট্টা করেছে তারাই যৌনকর্মী”, সায়নীকে কুরুচিকর আক্রমণ সৌমিত্র খাঁর

পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষের সভা থেকে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছেন প্রকাশ্যেই। সভা থেকে সৌমিত্র খাঁ জানান, আমাদের শিবলিঙ্গকে যারা অপমান করেছেন, আমাদের মা মনসাকে যারা অপমান করে তারাই অরিজিনাল যৌনকর্মী বলে আমি মনে করি। এই মন্তব্যের মধ্যে দিয়েই অভিনেত্রী সায়নী ঘোষকে কড়া জবাব দেন সৌমিত্র খাঁ। নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে সায়নী ঘোষ সহ চলচ্চিত্র জগতের শিল্পীদের একাংশকে নজিরবিহীন আক্রমণ করেন বিজেপি সাংসদ। তিনি বলেন, সায়নী ঘোষেরা ধর্মতলায় বসে নাটক করছে। তৃণমূলের দাসত্বগিরি করেছেন বেশ কিছু সংখ্যক কলা কুশলীরা। যারা যৌন পেশার সঙ্গে যুক্ত তারা শিবলিঙ্গকে কন্ডোম পরিয়ে পুজো করার কথা বলছেন।

তিনি আরও বলেন, কিছু ফিল্ম আর্টিস্ট যাঁরা দক্ষিণ কলকাতায় ২লক্ষ টাকা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে মাসিক বেতন পাচ্ছেন। তাঁরা এই সমস্ত কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেছেন দেবদেবীর প্রতি। শুধু তাই নয়, মা সরস্বতীকে বলা হচ্ছে যৌন কর্মী। আসলে যারা নিজেই যৌন কর্মী তারাই দেবদেবীদের সম্পর্কে এ ধরনের কথা বলছেন। তোমরা রাতের অন্ধকারে ভালো কিছু করো না। তাই এধরণের কথা বলছেন। তাঁর এধরণের মন্তব্যকে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বর্ধমানের তৃণমূলের মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাস বলেন, বিজেপি কোনও দিনই নারী জাতিকে সম্মান দেননি। সৌমিত্র-র এই কদর্যপূর্ণ মন্তব্য শুধু চলচ্চিত্র শিল্পীদেরই নয়, সমগ্র নারী জাতিকে অপমান করেছেন। রাজ্যের মহিলারা যথাযোগ্য উত্তর দেবে বিধানসভা নির্বাচনে।

কিছুদিন আগে সায়নী ঘোষের সঙ্গে তথাগত রায়ের টুইট যুদ্ধে সরগরম হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়া। এমনকি সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে তথাগত রায় রবীন্দ্র সরোবর থানায় এফআইআর দায়ের করেন। এই সমালোচনার তরজা যখন তুঙ্গে তখন দায় এড়িয়ে টুইটে অভিনেত্রী র সাফাই ছিল, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করতে চাইনি, তিনি দাবি করেন এই টুইট ২০১৫সালে অগোচরে করা হয়েছিল। শিবলিঙ্গের মাথায় কন্ডোম পড়াচ্ছেন এইডস সচেতনতা বিজ্ঞাপনে। সেই ছবিতে লেখা বুলাদির শিবরাত্রি। ছবির ক্যাপশনে লেখা ঈশ্বর এর থেকে বেশি কার্যকর হতে পারে না। সায়নী ঘোষের পাশে দাঁড়ান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সায়নীর পাশে দাঁড়ান বলে, সৌমিত্র খাঁ খণ্ডঘোষের সভা থেকে তীব্র আক্রমণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। তিনি সভা থেকে জনগণকে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এবার জবাব দেওয়ার সময় এসে গেছে। না হলে মন্দির একটাও থাকবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘাড় ধরে বের করে দেবেন আমাদের। আমরা যে যার ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা ও বিশ্বাস রাখি। কিন্তু আমাদের বিশ্বাস ভক্তিকে দুর্মূষ করে দিতে চাইছেন বেশ কিছু অভিনেত্রীরা। তাঁরা বলছেন দুর্গাপুজোর অষ্টমীতে গরুর মাংস খাওয়াবে। আমি বলি আমাদের শিবলিঙ্গ ও মা সরস্বতীকে অপমান করেছেন তাঁরা আসলে নিজেই যৌনকর্মী।

One thought on ““শিবলিঙ্গ নিয়ে যারা ঠাট্টা করেছে তারাই যৌনকর্মী”, সায়নীকে কুরুচিকর আক্রমণ সৌমিত্র খাঁর

Leave a Reply