কারা কারা পাবেন লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্পের সুবিধা? নির্দেশিকা জারি করল শিশু সুরক্ষা ও পরিবার কল্যাণ দপ্তর

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুয়ারে সরকার প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন।সেই মতো রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন স্কুলে স্কুলে দুয়ারে সরকার প্রকল্পের ক্যাম্প বসানো হয়েছিল। যার মাধ্যমে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প গুলির সুবিধা মিলছিল এক ছাদের তলায়।মুখ্যমন্ত্রী বিধানসভা নির্বাচনের আগে ইশতেহার প্রকাশ করেছিলেন আর সেই ইশতেহারে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন। সেই মতো নির্বাচনে জয়ী হয়ে তৃতীয় বারের মসনদে বসে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প নিয়ে বড়োসড়ো ঘোষণা করেছেন। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর সেই ঘোষণা অনুযায়ী এবার রাজ্যের মহিলারা আর্থিকভাবে সহায়তা পাবেন। পাশাপাশি তপশিলি জাতি এবং উপজাতি ভুক্ত মহিলারা একটু বিশেষ সুযোগ-সুবিধা পাবেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু 30 জুলাই তারিখে শিশু সুরক্ষা ও পরিবার কল্যাণ দপ্তর এর তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে সেই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে-

1. যে সমস্ত মহিলাদের নাম স্বাস্থ্যসাথী তে নথিভুক্ত রয়েছে অর্থাৎ যাদের কাছে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রয়েছে সেই সমস্ত মহিলারাই এই লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় আর্থিক সহায়তা পাবেন।যাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকবে না তাদের প্রথমে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের নাম নথিভুক্ত করার সুযোগ দেওয়া হবে একইসঙ্গে সেই মহিলাকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড পাওয়ার ক্ষেত্রে সমস্ত রকমের সহযোগিতা করা হবে।

2. এই প্রকল্পের সুবিধা সরকারি কর্মচারীরা অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী কেন্দ্র রাজ্যের কর্মচারী, কিংবা কোন স্বশাসিত সংস্থা বা সরকারি নিয়ন্ত্রিত কোন সংস্থা, পঞ্চায়েত শিক্ষক শিক্ষা কর্মী সরকারি স্কুলের কর্মীরা পাবেন না।

3. এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে গেলে মহিলাকে অবশ্যই রাজ্যের বাসিন্দা হতে হবে এবং তার বয়স হতে হবে 25 থেকে 60 বছরের মধ্যে।

4. দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে গিয়ে এই অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম তুলতে পারবেন এবং সমস্ত সরকারি আধিকারিক রা আবেদনকারীর তথ্য যাচাই করে দেখবেন।

5.তথ্য যাচাই হয়ে যাবার পর গ্রামাঞ্চলের ব্লগ ডেভলপমেন্ট অফিসার এবং শহরের সাব ডিভিশনাল অফিসার ডাঃ আবেদনপত্র গুলিকে পোর্টালে তুলবে এরপর জেলা শাসকের কাছে পাঠানো হবে এবং জেলাশাসক করবেন আবেদনকারীরা এই প্রকল্পের যোগ্য কিনা।

6. আবেদনকারীর ব্যাংক একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করা হবে তবে যদি ভুল তথ্য দেন সেক্ষেত্রে টাকা স্থগিত থাকবে।

প্রসঙ্গত শুরু হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায় দুয়ারে সরকার ক্যাম্প ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের তরফে কোন কোন স্কুলে ক্যাম্প করা হবে সেই সংক্রান্ত একটি বিবরণ দিয়ে দেওয়া হয়েছে কিন্তু নবান্নের তরফে করোনা বিধি মেনে যাতে সুষ্ঠুভাবে হয় সে ব্যাপারে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে।

One thought on “কারা কারা পাবেন লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্পের সুবিধা? নির্দেশিকা জারি করল শিশু সুরক্ষা ও পরিবার কল্যাণ দপ্তর

Leave a Reply