একদম ঘরোয়া পদ্ধতিতে এভাবেই মুচমুচে বেগুনি তৈরি করুন, জেনে নিন সহজ পদ্ধতি

  • 4
    Shares

বাঙালি মানেই ভোজনরসিক আর ভোজনরসিক বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ এর অন্যতম একটি বিষয় হল কব্জি ডুবিয়ে খাওয়া।তবে শুধুমাত্র উৎসবের আনন্দে বাঙালি খেয়ে বসে না এমনটা নয় প্রতিদিনের দুপুর কিংবা রাতের খাবারের সঙ্গে আরো অনেক পদ সাজিয়ে খেতে সকলেরই ভালো লাগে।তার ওপরে আবার শীত গ্রীষ্ম বর্ষা শরৎ হেমন্ত বসন্ত ঋতু অনুযায়ী নানান ধরনের খাবার খেতে ভালো লাগে আপামর বাঙালির।সন্ধ্যাবেলায় চায়ের কাপ নিয়ে ড্রয়িংরুমে টিভি দেখতে বসা থেকে শুরু করে আবার কখনো বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা সবেতেই স্ন্যাকস পছন্দ করে বাঙালি জনগণ।সময়ের অভাবে সেই স্নাক্স আর বাড়িতে তৈরি করা হয় না বরং বাজার থেকে কিনে আনা হয় আর এভাবেই সন্ধ্যের খাবার কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়ার অন্যতম প্রিয় পদ বেগুনি ভাজা।

অনেকেই যেটি বাজার কিংবা দোকান থেকে কিনে আনেন কিন্তু এতে ক্ষতি হয় বেশি যেহেতু অত্যন্ত বাজে পরিমাণের দেওয়া হয় তাই কখনই খাওয়া উচিত নয় এবার এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বাড়িতে সহজ উপায়ে দোকানের মত মুচমুচে বেগুনি ভাজিয়ে ফেলুন এভাবেই। প্রথমেই দেড় কাপ বেসন নিয়ে তাতে এক টেবিল-চামচ তেল যোগ করে দিন।তারপর জল দিয়ে মিশ্রণটি মাখুন এবং যতক্ষণ না নরম হবে ততক্ষণ মাখিয়ে যান।

মিশ্রণটি যখন হালকা ফুলের উঠবে তখন বোঝা যাবে যে জিনিসটি ভালোভাবে মাখা হয়েছে এবং তার মধ্যে পরিমাণমতো লবণ লঙ্কার গুঁড়ো হলুদ গুঁড়া আদা বাটা রসুন বাটা বেকিং পাউডার মিশিয়ে নিন তারপর আবারো জল দিয়ে মিশ্রনটিকে ভালোভাবে খুলে ফেলুন।এরপর লম্বা লম্বা করে বেগুন গুলিকে কেটে নিয়ে তাদের লবণ মিশিয়ে সেই বেগুনের মিশ্রণে ডুবিয়ে কড়াই ছাঁকা তেলে ভেজে নিন।তবে ভাজার সময় মাথায় রাখতে হবে যে মিশ্রণটিতে বেগুনগুলি ডুবিয়ে নিচ্ছেন যাতে দুই দিকে ভালোভাবে বেসন লেগে থাকে।

এরপর সেগুলি ভাজা হয়ে গেলে গরম গরম তুলে পরিবেশন করুন এবং এই পদ্ধতিতে যদি বেগুনি ভাজা করেন যেমন অত্যন্ত সুস্বাদু তেমনি স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী।

One thought on “একদম ঘরোয়া পদ্ধতিতে এভাবেই মুচমুচে বেগুনি তৈরি করুন, জেনে নিন সহজ পদ্ধতি

error: Content is protected !!