শীতের মরশুমে এই পদ্ধতিতে বেশ কিছু সবজি দিয়ে সুস্বাদু পকোরা ভাজা বানিয়ে ফেলুন বাড়িতেই,রইল পদ্ধতি

ভোজন রসিক বাঙ্গালী তাই বাঙালির পাতে যেমন মাছের দরকার হয় ঠিক তেমনি জলখাবারের আবার বিভিন্ন ধরণের খাবার না হলে যেন মন ভরে না।আর কিছু না হোক সময় সময় জলখাবার এবং সন্ধ্যেবেলার টিফিন সকলেই ঠিকভাবে করেন।যদিও এই দুইটাই মেয়ের খাবারের ওপর আমাদের স্বাস্থ্যবিধির সুস্থতা নির্ভর করে।তবে সাধারণভাবে আমরা টিফিনে বা জলখাবারে হালকা স্ন্যাক্স জাতীয় খাবার পছন্দ করি যেমন কিছু পকোড়া ভাজা অল্প কিছু ভাজাভুজি এবং ছোটখাটো কিছু দিয়ে মুড়ি খাওয়া এইসব।যদিও বহু বছর আগে এই সমস্ত খাবারের এতটা চলছিল না কিন্তু বর্তমানে যেভাবে মানুষ এই সমস্ত স্ন্যাকস জাতীয় খাবার খেতে পছন্দ করেন তা কিন্তু মোটেও দোকান থেকে খাওয়া নিরাপদ নয়।

যেহেতু দোকানে ভাজা জিনিসগুলি সুস্বাস্থ্যের তেল নিয়ে তৈরি করা হয় না তাই একদিক থেকে আমাদের স্বাস্থ্যের ওপর যেমন ক্ষতি করে তেমনি আমাদের জীবনযাত্রার ক্ষেত্রেও অনেক প্রভাব ফেলে এর পাশাপাশি আমাদের এই ধরনের খাবার খাওয়ার ফলে নানান রকমের শারীরিক অসুস্থতা দেখা যায় তাই সহজে নতুর ভাজির রেসিপি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো যা খেলে একদিক থেকে আপনার সুস্থতা বজায় থাকবে অন্যদিকে খরচ হবে অনেক কম।

উপকরণ- মটর কিছুটা বেটে নিতে হবে অর্ধেক কাপ গোটা জিরে অর্ধেক চা চামচ ময়দা ছাড়া ভাগের এক ভাগ চালের আটা কারিপাতা আদার টুকরো।

প্রথমে মোটর গুলিকে হালকা করে বেটে নিন তারপর অন্য একটি পাত্রে পরিমাণমতো দই স্বাদমতো নুন গোটা জিরে কিছুটা পরিমাণে ময়দা চালের আটা এসব মিশে ভালোভাবে জল দিয়ে নাড়াচাড়া করে নিন তারপর এই মিশ্রণের সঙ্গে কারি পাতা এবং আধার টুকরো মিশিয়ে নিন।

এইবার এই মিশ্রণের সঙ্গে মটরশুটি কড়াই এর টেস্ট ভালোভাবে মেখে নিন।আপনি চাইলে অবশ্যই 2 চামচ ছোলার ডাল বাটা মিশিয়ে নিতে পারেন তার সঙ্গে অল্প করে রসুন কুচি কাঁচা লঙ্কা এগুলি যোগ করে তার সঙ্গে কড়াইতে বেশি পরিমাণে তেল দিয়ে চক্রাকারে ভাজুন এবং গরম গরম পরিবেশন করুন। এটি যেমন খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু হবে তেমনি আপনার খরচসাপেক্ষ আর তার সঙ্গে আপনার স্বাস্থ্যগত দিক দিয়ে অনেক উপকারিতা রয়েছে।মাথায় রাখবেন এটি গরম গরম খেলে বেশি স্বাদ পাবেন।

One thought on “শীতের মরশুমে এই পদ্ধতিতে বেশ কিছু সবজি দিয়ে সুস্বাদু পকোরা ভাজা বানিয়ে ফেলুন বাড়িতেই,রইল পদ্ধতি

Leave a Reply